আপনার পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করুন

অনেক আগে নিবন্ধিত হওয়া পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে হলে ২৩০ টাকা ফি দিয়ে রি-ইস্যু আবেদন করে অনলাইন থেকে আইডি কার্ডের অনলাইন কপি ডাউনলোড করতে পারবেন। আপনার পুরাতন জাতীয় পরিচয় পত্রটি হারিয়ে গেলে অথবা নষ্ট হয়ে গেলে আজকে দেখানো নিয়ম অনুসারে পুনরায় তা ডাউনলোড করতে পারবেন।

নতুন ভোটার আইডি কার্ড অনলাইন থেকে ফ্রিতে ডাউনলোড করার সুযোগ থাকলেও পুরাতন জাতীয় পরিচয়পত্র আবার পেতে হলে থানায় জিডি করতে হয়। তার পর ২৩০ টাকা সরকারি ফি পরিশোধ করে NID Reissue আবেদন করতে হবে।

যারা ২০১৮ সালের পূর্বে তাদের এনআইডি কার্ড হাতে পেয়েছে তারা তাদের পুরাতন আইডি কার্ড ডাউনলোড করতে হলে (চুড়ি হওয়া, হারিয়ে যাওয়া অথবা নষ্ট হওয়া) এই মর্মে থানায় সাধারণ ডায়েরি (GD) লেখাতে হবে।

পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার নিয়ম

অনলাইন থেকে পুরাতন ভোটার আইডি ডাউনলোড করার জন্য প্রথমে থানায় জিডি করে GD Copy সংগ্রহ করতে হবে। তারপর services.nidw.gov.bd ওয়েব সাইটে রেজিস্ট্রেশন করে 230 টাকা ফি এবং জিডি কপি আপলোড করে রিইস্যুর জন্য আবেদন করুন। আবেদনটি অনুমোদন হলে আইডি কার্ড ডাউনলোড করুন।

পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড

আমাদের দেখানো নিয়ম অনুসরণ করে খুব সহজে আপনার Old NID Card Download করতে সক্ষম হবেন। পুরাতন এনআইডি কার্ড নতুন করে ডাউনলোড করার জন্য সহজ ৪টি ধাপ অনুসরণ করতে হবে।

  • থানায় সাধারণ ডায়েরি করুন
  • NID Service সাইটে রেজিস্ট্রেশন
  • এনআইডি রিইস্যুর আবেদন
  • পুরাতন আইডি ডাউনলোড

চলুন আমরা একসাথে ছোট ছোট ধাপগুলো অনুসরণ করে আইডি কার্ড রিইস্যু আবেদনটি সম্পন্ন করি।

থানায় সাধারণ ডায়েরি (GD) করার নিয়ম

যে আইডি কার্ডটি হারিয়ে গেছে বা নষ্ট হয়ে গেছে সেই NID Card এর নাম্বার উল্লেখ করে আপনার নিকটস্থ থানায় আইডি কার্ড হারিয়ে গেছে এই মর্মে সাধারণ ডায়েরি করুন। জিডি করতে থানায় / পুলিশ স্টেশনে কোনো ফি দিতে হয় না।

GD লিখার পর সেটি ২টি কপি করে নিবেন। দুটি পেপারেই দায়িত্ব প্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তার নাম, GD Number, থানার সিক এবং তারিখ লিখে দিবে। একটি জিডি কপি থানায় রেখে দিবে অন্যটি আপনাকে দিয়ে দিবে। আপনাকে যেটি দিবে সেটি স্ক্যান করে নিবেন।

হারানো আইডি কার্ড বা পুরাতন ভোটার আইডি কার্ডের জন্য থানায় জিডি লেখা সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে জিডি লেখার নমুনা দেখে আপনি আপনার জন্য GD তৈরি করে নিন।

NID Service সাইটে রেজিস্ট্রেশন

NID Service ওয়েব সাইটে একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করার জন্য ভিজিট করুন https://services.nidw.gov.bd/nid-pub/ তারপর “রেজিস্টার করুন” বাটনে চাপুন। আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র নাম্বার এবং জন্ম তারিখ লিখে সাবমিট করুন।

তারপর আপনাকে আপনার বর্তমান এবং স্থায়ী ঠিকানা যাচাই করতে বলা হবে। আপনার আইডি কার্ডের পেছনে থাকা ঠিকানা আনুসারে সঠিক ভাবে ঠিকানা পূরণ করুন।

তারপরে আপনার মোবাইল নাম্বার ভেরিফিকেশনের জন্য ৬ সংখ্যার ভেরিফিকেশন কোড পাঠানো হবে। যাচাই কোড দিয়ে সাবমিট করার পর Face Verification করার জন্য NID wallet app ব্যবহার করতে হবে। NID Service সাইটে রেজিস্ট্রেশন সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন।

NID Card রিইস্যু আবেদন

Bangladesh NID Application System এ সফল ভাবে লগইন করার পর নিচের ছবির মতো ড্যাশবোর্ড দেখতে পাবেন। এখন হোম থেকে রিইস্যু টেপে ক্লিক করুন।

ভোটার আইডি রিইস্যু আবেদন
NID Card রিইস্যু আবেদন

এখন আপনাকে নতুন একটি পেজে ভোটার আইডি রিইস্যু ফরম পূরণ করার জন্য নিয়ে যাবে। এডিট বাটনে চেপে আবেদন ফরমটি পূরণ করতে হবে। নিচের ছবিটি লক্ষ করলে এ বিষয়টি ক্লিয়ার হয়ে যাবে।

আইডি কার্ড রিইস্যু ফরম ফিলাপ

আমারা প্রথম ধাপেই জিডি করার নিয়ম এবং সেটি স্ক্যান করে রাখার জন্য বলেছি। এখন আমাদের করা GD কপি আনুসারে GD নাম্বার, থানা ও প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে NID রিইস্যু ফরম পূরণ করি। সবশেষে জিডি দাখিলের তারিখ লিখে পরবরতি বাটনে চাপুন।

২৩০ টাকা রিইস্যু ফি পেমেন্ট করুন

পুরাতন জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করার জন্য ২৩০টাকা সরকারি ফি পরিশোধ করতে হবে। বর্তমানে মোবাইল ব্যাংকিং যেমন বিকাশ, রকেট ও নগদ ব্যবহার করে এই রিইস্যু ফি জমা দেয়া যায়।

উপরের ছবিটি দেখেলে বিকাশের মাধ্যমে আইডি কার্ডের জন্য ফি পরিশোধের নিয়ম পানির মতো সহজ মনে হবে। সম্পূর্ণ পেমেন্ট প্রসেস তীর চিহ্ন এবং নাম্বার দিয়ে দেখানো হয়েছে।

ডকুমেন্টস আপলোড করুন

আইডি কার্ড রিইস্যু ডকুমেন্টস হিসেবে জিডির স্ক্যান কপি আপলোড করতে হবে। স্ক্যানই করতে হবে সেটা আবশ্যক নয়, মোবাইলে স্পষ্ট ছবি হলেও আপলোড করা যাবে।

মোবাইলে ছবি তোলা হলে ডকুমেন্টের সাইজের দিকে খেয়াল রাখতে হবে যাতে ১০০ কিলো বাইট (100 KB) এর বেশি না হয়। আর যদি হয়েও যায় তা হলে কম্প্রেস করে কমিয়ে নিতে হবে।

ডকুমেট আপলোড হয়ে গেলে আপনার NID Card Reissue আবেদনের একটি সামারি দেখাবে। সামারিতে রিস্যুর ধরন ও আপলোড করা ডকুমেটস এর তথ্য দেখাবে। সব কিছু ঠিক থাকলে আবেদন সাবমিট করুন।

পুরাতন আইডি কার্ড ডাউনলোড

আবেদন সাবমিটের কিছু দিনের মধ্যে ১০৫ থেকে মোবাইলে SMS পাঠিয়ে আবেদন অনুমোদন হয়েছে কিংবা হয়নি জানিয়ে দিবে। NID Card Verification করার নিয়ম দেখুন।

পুরাতন ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার জন্য অ্যাকাউন্টের ড্যাশবোর্ড প্রবেশ করতে হবে। পূর্বে দেখানো নিয়ম আনুসরন করলে এই পর্যন্ত পৌছে যাবার কথা। এখন হোম মেনুতে প্রবেশ করতে হবে। আপনি এখন আপনার ছবি ও আপনার পরিচয় পত্রের কিছু তথ্য এবং তার পাশাপাশি এই পেজের নিচের দিকে ডাউনলোড নামক বাটন দেখতে পারবেন।

হারানো আইডি কার্ড পুনরায় ডাউনলোড করুন
NID Card Download

আইডি কার্ড ডাউনলোড করে সেটি প্রিন্ট করে লেমেনেটিং করে নিলেই পুরাতন আইডি কার্ডের মতো হয়ে যাবে। কিন্তু অনলাইন থেকে ডাউনলোড করা জাতীয় পরিচয়পত্রের নাম্বার হবে ১০ সংখ্যার আর এটিই হলো আপনার স্মার্ট আইডি কার্ডের নাম্বার।

Similar Posts

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

8 Comments