আইডি কার্ডে অসুন্দর ছবি? NID কার্ডের ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন করুন

জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন করার জন্য একটি সংশোধন ফরম পূরণ করে উপজেলা নির্বাচন অফিসে জমা দিয়ে খুব সহজেই NID কার্ডের ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন করা যায়।

আইডি কার্ডের ছবি তোলার সময় অধিকাংশের ছবি তাড়াহুড়ার কারণে অস্পষ্ট কিংবা অসুন্দর হয়। যারা ২০০৮ সালে কিংবা প্রথম দিকের ভোটার তাদের ছবিগুলো ক্যামেরা ভালো না থাকার কারণে ছবি গুলো ঘোলা এসেছে।

অনেকের জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি এতটাই অস্পষ্ট যে NID Card এর ছবি দেখে ব্যক্তিকে সনাক্ত করা যায় না। অনেকের হয়তো চেহারার বাহ্যিক পরিবর্তনের কারণে ভোটার আইডি কার্ডের ছবির সাথে বর্তমানের চেহারার মিল পাওয়া যায় না।

এনআইডি কার্ডের অস্পষ্ট কিংবা অমিল ছবি কারণে দৈনন্দিন জীবনে অনেকেই নানান সমস্যার মধ্যে পরে থাকে। ব্যাংকিং এর মত গুরুত্বপূর্ণ কাজে ব্যক্তির স্বাক্ষর আইডি কার্ডের সাথে যাচাই করে দেখা হয়, এক্ষেত্রেও অনেকে বিভিন্ন প্রকার সমস্যা ফেস করে। এর জন্য আইডি কার্ড সংশোধন করা খুবই প্রয়োজন।

NID কার্ডের ছবি পরিবর্তন করার নিয়ম

NID কার্ডের ছবি পরিবর্তন করার জন্য জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন ফরম-২ পূরণ করে উপজেলা নির্বাচন অফিসে স্ব শরীরে উপস্থিত হয়ে ভোটার আইডি কার্ডের ছবি পরিবর্তনের আবেদন জমা দিন। আবেদন ফরমে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ফি ২৩০ টাকা জমা দেয়ার ট্রানজেকশন নাম্বার উল্লেখ করুন।

এনআইডি কার্ডের ছবি পরিবর্তনের আবেদন জমা দেওয়া হলে সেটি প্রাথমিকভাবে যাচাই-বাছাই করা হবে। ছবি পরিবর্তনের কারণ যুক্তিসম্মত হলে, নতুন ছবি তোলার জন্য একটি তারিখ দেওয়া হবে। আর যদি নির্বাচন অফিসে কাজের তেমন চাপ না থাকে তাহলে সেদিনই ছবি তুলে রাখতে পারে।

জাতীয় পরিচয়পত্রের ছবি এবং স্বাক্ষর পরিবর্তন আবেদন, সংশোধনী ক্যাটাগরি “খ” এর অন্তর্ভুক্ত। আমরা জানি খ-ক্যাটাগরির আবেদন জেলা পর্যায়ে অনুমোদন করা হয়। আবেদন অনুমোদন হয়ে গেলে সংশোধিত ভোটার আইডি কার্ড ডাউনলোড করার জন্য আপনার মোবাইলে এসএমএস পাঠানো হবে।

NID কার্ডের স্বাক্ষর পরিবর্তন করার নিয়ম

আইডি কার্ডের স্বাক্ষর পরিবর্তন করার জন্য স্বাক্ষর পরিবর্তন ফরম ডাউনলোড করে তা প্রিন্ট করুন। তারপর সংশোধন ফর্মটি পূরণ করুন। প্রয়োজনীয় ভোটার আইডি তথ্য সংশোধন ফি জমা দিন। আবেদন ফরম নিয়ে সরাসরি উপজেলা নির্বাচনে অফিসে উপস্থিত হোন।

NID কার্ডের স্বাক্ষর এবং ছবি পরিবর্তন করার নিয়ম একই। ঐ একটি মাত্র সংশোধন ফরম পূরণ করার মাধ্যমে জাতীয় পরিচয়পত্রের স্বাক্ষর এবং ছবি পরিবর্তন করা যাবে।

সম্পূর্ণ বিষয়টি কিভাবে করতে হবে তা বিস্তারিত ধাপে ধাপে বর্ণনা করা হলো আমাদের দেখানো নিয়মগুলো অনুসরণ করলে খুব সহজেই জাতীয় পরিচয়পত্রের ছবি এবং স্বাক্ষর পরিবর্তন করতে পারবেন।

NID কার্ডের ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন

  • জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন ফরম-২ ডাউনলোড
  • সংশোধন ফরম পূরণ করুন
  • সংশোধন ফি জমা দিন
  • আবেদন সাবমিট করুন

জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন ফরম ২ ডাউনলোড

জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন ফরম ডাউনলোড করার জন্য services nidw gov bd এর ডাউনলোড পেজ থেকে তথ্য সংশোধনের জন্য আবেদন ফর্ম ডাউনলোড করুন।

সংশোধন ফরম ২ ডাউনলোড

আপনি চাইলে নিচের দেওয়া ডাউনলোড বাটন থেকেও NID কার্ডের ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন করার আবেদন ফরম ডাউনলোড করতে পারবেন।

আইডি কার্ডের ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন করার ফরম ডাউনলোড হয়ে গেলে সেটি একটি কম্পিউটার দোকান থেকে প্রিন্ট করে নিন।

ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন ফরম পূরণ করুন

ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন করার জন্য জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন ফরম ২ ডাউনলোড করে প্রিন্ট করে নিন। তারপর ফর্ম এর প্রথম দিকের ঘরে নাম, জাতীয় পরিচয়পত্রের নাম্বার লিখুন।

সংশোধনের বিষয় হিসেবে অন্যান্য (ঝ) ১ম সাড়িতে ছবি ও স্বাক্ষর লিখুন। চাহিত সংশোধিত তথ্য হিসেবে ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন লিখুন। সংযুক্ত দলিলাদি হিসেবে আইডি কার্ডের ফটোকপি লিখুন।

উপরে ফাঁকা ঘরগুলো কলম দিয়ে সোজাসুজি দাগ টেনে কেটে দিতে পারেন। আইডি কার্ডের ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন করার ফর্ম কিভাবে পূরণ করবেন তার নিচে নমুনা দেখানো হলো। নিচের ছবিটি অনুসরণ করে আপনি আপনার ফর্ম ফিলাপ করুন।

ফর্মটির নিচের দিকে আবেদনকারীর নাম মোবাইল নাম্বার এবং ঠিকানা লিখতে হবে। এখানে যে নাম্বারটি দেওয়া হবে আবেদন অনুমোদন হলে সেই নাম্বারে এসএমএস করে জানানো হবে।

ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন ফরম

সংশোধন ফি জমা দিন

আইডি কার্ডের ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন করার জন্য ২৩০ টাকা প্রদান করতে হবে। জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন ফি জমা দেওয়ার কয়েকটি মাধ্যম রয়েছে। বিকাশ, রকেট, নগদ এবং অন্যান্য মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে এই সংশোধন প্রদান করা যায়।

বিকাশ বাংলাদেশের জনপ্রিয় মোবাইল ব্যাংকিং গুলোর মধ্যে অন্যতম এবং প্রায় সবার কাছে বিকাশ রয়েছে। বিকাশের মাধ্যমে জাতীয় পরিচয়পত্রের সংশোধন ফি জমা দেওয়ার জন্য, বিকাশের দেশবোর্ড থেকে পে বিল অপশনে চলে যান।

পে বিল থেকে NID Services বাছাই করুন তারপর আবেদনের ধরন এবং NID card এর নাম্বার দিয়ে ২৩০ টাকা ফি পরিশোধ করুন। বিকাশের মাধ্যমে আইডি কার্ডের ফি পরিশোধ করার নিয়ম জানুন। সংশোধন ফি জমা দেওয়া হয়ে গেলে বিকাশের ট্রানজেকশন নাম্বারটি ফরমে যুক্ত করুন।

সংশোধন আবেদন জমা দিন

আইডি কার্ডের স্বাক্ষর এবং ছবি পরিবর্তন করার যে ফর্মটি ডাউনলোড করা হয়েছে তা সঠিকভাবে পূরণ করা হলে সেটি জমা দেওয়ার জন্য উপজেলা নির্বাচন কমিশন অফিসে নিজে উপস্থিত হতে হবে। এই আবেদন আপনার পক্ষ থেকে অন্য কেউ জমা দিলে গ্রহণযোগ্য হবে না।

আবেদন ফরমের সাথে জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি সংযুক্ত করে নির্বাচন অফিসের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তার কাছে জমা দিন। আপনার ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন করার কারণ যুক্তিযুক্ত হলে আবেদনটি গ্রহণ করা হবে।

নতুন স্বাক্ষর এবং ছবি তোলার জন্য একটি তারিখ নির্ধারণ করা হতে পারে। আর যদি নির্বাচন অফিসের তেমন কোন কাজের চাপ না থাকে তাহলে আবেদন জমা দেওয়ার দিন ব্যক্তির ছবি এবং স্বাক্ষর সংগ্রহ করা হয়।

নতুন ছবি ও স্বাক্ষর যুক্ত আইডি কার্ড ডাউনলোড

আবেদন জমা দেওয়া ও নতুন করে স্বাক্ষর এবং ছবি তুলে আসার পর আবেদনটি অনুমোদন হতে ১৫ থেকে ৩০ দিন সময় লাগে। এই ধরনের আবেদন সংশোধন ক্যাটাগরি “খ” এর অন্তর্ভুক্ত। এই আবেদন অনুমোদনের জন্য জেলা পর্যায়ে চলে যাবে।

অনুমোদন হলে নতুন ছবি যুক্ত জাতীয় পরিচয় পত্র অনলাইন মাধ্যম অথবা নির্বাচন কমিশন অফিস থেকে সংগ্রহ করা যাবে। অনলাইন মাধ্যম থেকে জাতীয় পরিচয় পত্রের PDF ফাইল ডাউনলোড করে তা প্রিন্ট করে নিতে হবে।

নতুন ছবি ও স্বাক্ষর যুক্ত আইডি কার্ড ডাউনলোড করার জন্য services nidw gov bd সেটা প্রবেশ করুন। আপনার আইডি কার্ডের নাম্বার এবং জন্ম তারিখ দিয়ে অ্যাকাউন্ট নিবন্ধন করুন। তারপর ড্যাশবোর্ড থেকে ডাউনলোড মেনুতে ক্লিক করে নতুন সংশোধিত আইডি কার্ড ডাউনলোড করুন।

অনলাইন থেকে জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করার নিয়ম দেখুন।

বর্তমানে স্মার্ট আইডি কার্ড বিতরণ কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। তাই আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের ছবি এবং স্বাক্ষর পরিবর্তন হলেও নতুন করে স্মার্ট আইডি কার্ড পাবেন না।

তথ্য সংশোধনNID Card Correction
যাচাই করুনভোটার তথ্য যাচাই
NIDBDNID BD

আইডি কার্ডের ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন সম্পর্কিত প্রশ্ন উত্তর

আইডি কার্ডের ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন হতে কত দিন লাগে?

ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তনের আবেদন জমা দেওয়ার পর নতুন করে ছবি ও স্বাক্ষর দিতে হয়। এরপর ১৫ থেকে ৩০ দিনের মধ্যে আবেদনটি অনুমোদন হয়ে যায়।

নতুন ছবির স্মার্ট কার্ড পাওয়া যাবে?

আইডি কার্ডের ছবি পরিবর্তনের আবেদন অনুমোদন হলে জাতীয় পরিচয়পত্রের নতুন ছবি যুক্ত অনলাইন কপি ডাউনলোড করে ব্যবহার করা যাবে। বর্তমানে স্মার্ট আইডি কার্ড বিতরণ কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে তাই ছবি পরিবর্তন হলেও স্মার্ট কার্ড পাবেন না।

NID কার্ডের ছবি পরিবর্তন করতে কি কি লাগে?

আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের ছবিটি অস্পষ্ট হলে তা পরিবর্তন করে আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি এবং আপনি নিজে নির্বাচন আফিসে উপস্থিত হতে হবে।

সংশোধন ফরমের কোথায় ট্রানজেকশন নাম্বার লিখব?

আবেদনের ৫ নং কলামে সংশোধন ফি জমা দেওয়ার তথ্যের বিবরণের জন্য অপশন রয়েছে। বিকাশের মাধ্যমে আইডি কার্ডের ছবি ও স্বাক্ষর পরিবর্তন এর পিক জমা দেওয়া হলে ট্রানজেকশন আইডি লিখতে হবে।

Similar Posts

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।