ভোটার নাম্বার, সিরিয়াল ও ভোট কেন্দ্র চেক করুন মোবাইল অ্যাপে

চলে এসেছে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন, নিজেদের পছন্দের সরকার প্রতিনিধিকে নির্বাচিত করার জন্য দিয়ে হবে ভোট। ভোট প্রদানের ক্ষেত্রে কিছু বিষয় জানা থাকলে ভোট কার্যক্রম আরো সহজ ঝামেলা মুক্ত হয়। ভোটার নাম্বার জানা থাকলে আইডি কার্ড সাথে নিতে হবে না।

ভোটার নাম্বার এবং ভোটার সিরিয়াল নাম্বার জানা থাকলে লাইনে দাঁড়িয়ে টোকেন সংগ্রহ করার প্রয়োজন হয় না। আপনার সিরিয়াল অনুসারে ভোট কেন্দ্রে যাবেন আর ভোট দিয়ে চলে আসবেন। যারা নিজের Voter Number এবং serial Number জানে না তারাই লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে টোকেন সংগ্রহ করবে এবং ভোট দিবে।

নির্বাচনী কার্যক্রম ম্যানেজমেন্ট করার জন্য বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন Smart Election নামে একটি অ্যাপ্লিকেশন প্রকাশ করেছে। স্মার্ট ইলেকশন অ্যাপ এর মাধ্যমে বাংলাদেশের সকল ভোটার তাদের ভোটার নাম্বার, ভোটকেন্দ্র, কেন্দ্রের ঠিকানা এবং ভোটার সিরিয়াল জানতে পারবে।

ভোটার নাম্বার, সিরিয়াল নাম্বার বের করার নিয়ম

ভোটার নাম্বার ও সিরিয়াল নাম্বার বের করার জন্য প্লে-স্টোর থেকে Smart Election অ্যাপটি ইন্সটল করে আপনার NID card এর নাম্বার এবং জন্ম তারিখ দিয়ে নিবন্ধন করুন। অ্যাপটির হোম পেজে আপনার ভোটার নাম্বার, সিরিয়াল নাম্বার, ভোটার এলাকা এবং ভোট কেন্দ্রের ঠিকানা দেখতে পাবেন।

জাতীয় পরিচয় পত্র, পাসপোর্ট এবং জন্ম নিবন্ধন সংক্রান্ত সমস্যার সমাধান এবং পরামর্শ জানতে আমাদের সোশ্যাল মিডিয়াতে যুক্ত থাকুন।

Smart Election অ্যাপ থেকে যা যা জানতে পাবেন-

  • ভোটার নাম্বার
  • ভোটিং সিরিয়াল
  • ভোট কেন্দ্রের নাম
  • কেন্দ্রের ঠিকানা
  • প্রার্থীর তালিকা
  • নির্বাচনী ফলাফল

উপরোক্ত উল্লেখযোগ্য তথ্য ছাড়া আরো বেশ কিছু ইনফরমাশন রয়েছে, যেমন নির্বাচন প্রার্থীদের হলফনামা, ইনকাম টেক্স রিটার্নের প্রমাণ ইত্যাদি।

voter info checker app
voter info checker app

ভোটার নাম্বার জনার উপায়

প্রথমেই আপনার ফোনের Play Store ওপেন করুন, তারপর Smart Election অ্যাপটি ইন্সটল করুন। অ্যাপটি ওপেন করে আইডি নাম্বার এবং জন্ম তারিখ দিয়ে ভেরিফাই করুন। এখন আপনি আপনার ভোটার নাম্বার, সিরিয়াল নাম্বার, কেন্দ্রের নাম এবং ঠিকানা দেখতে পাবেন।

যাদের জাতীয় পরিচয়পত্র হয়েছে কিন্তু আইডি কার্ড হাতে নেই তারা চাইলেই অনলাইন থেকে জাতীয় পরিচয় পত্র ডাউনলোড করে নিতে পারেন। NID online copy থেকে এনআইডি নাম্বার এবং জন্ম তারিখ জেনে নিয়ে অ্যাপের মাধ্যমে ভোটার তথ্য চেক করতে পারবেন।

Voter info checker

তাছাড়া মেনু থেকে সার্চ আইকনে ক্লিক করে যে কারো আইডি নাম্বার এবং জন্ম তারিখ দিয়ে তার ভোট কেন্দ্র, ভোটার নাম্বার এবং সিরিয়াল নাম্বার জানা যাবে। তাই টোকেন নেওয়ার জন্য আর ঝামেলা পোহাতে হবে না।

তবে যারা নতুন আইডি কার্ড করেছেন অর্থাৎ যাদের জন্ম 01-01-2005 এর পর তারা এবার নির্বাচনে ভোট দিতে পারবে না। তার মানে NID থাকা থাকলে ভোট দিতে পারবে না কিছু নাগরিক। smart election অ্যাপে তাদের কোন তথ্য দেখাবে না। কারণ দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের যাদের জন্ম ২০০৫ এর আগে তাদের ভোটার তালিকার অন্তরভুক্ত করা হয়েছে। আর যাদের তথ্য ভোটার তালিকায় আছে তদের তথ্যই এখানে দেখা যাবে।

ভোট কেন্দ্রে আইডি কার্ড নিয়ে যেতে হবে?

ভোট দিতে হলে আইডি কার্ডের প্রয়োজন হয় না তবে আপনি যদি আপনার ভোটার সিরিয়াল নাম্বার না জানেন তাহলে আইডি কার্ড নিয়ে গেলে NID Card নাম্বার দেখে সহজেই ভোটার নাম্বার এবং সিরিয়াল নাম্বার বের করে ব্যক্তি সনাক্ত করতে সহজ হয়। নির্বাচনের দিন অথবা আগেই প্রার্থীগন ভোটারদের একটি টোকেন বিতরণ করে থাকে, যার মধ্যে ভোটার নাম্বার ও সিরিয়াল উল্লেখ থাকে।

কি কারণে ভোট বাতিল হয়?

সিল স্পষ্ট না হলে সে ভোট বাতিল বলে গণ্য হয়, দুই প্রতিকের মাঝামাঝি সিল থাকলে সেটি কোন প্রতিকের নিশ্চিত না হওয়া গেলে ভোট বাতিল হয়ে যাবে।

Similar Posts

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

18 Comments

    1. জি আপনি ঠিকি বলেছেন। সার্ভারে সমস্যা ছিলো তাই বাকি তথ্য দেখাচ্ছিলো না। এখন ঠিক হয়ে গেছে, প্রয়োজনে অ্যাপের ক্লিয়ার করে আবার চেষ্টা করুন।

    1. সার্ভারে সমস্যা ছিলো তাই বাকি তথ্য দেখাচ্ছিলো না। এখন ঠিক হয়ে গেছে, প্রয়োজনে অ্যাপের ক্লিয়ার করে আবার চেষ্টা করুন।